১ ভূমিকা

চলচ্চিত্র নির্মানের প্রধান কারিগরী স্তরগুলোর মধ্যে অন্যতম একটা স্তর বা ধাপ, চিত্রনাট্য রচনা। এককথায়ে চিত্রনাট্য হলো কোন চলচ্চিত্র নির্মানের কারিগরি ও শীল্প পরিকল্পনার নক্সা। চিত্রনাট্য রচনা কোন সাহিত্য কর্ম নয় ঠিকই, তবে বর্তমানে তা জনপ্রিয় পাঠ্য হিসাবে সমাদর পাচ্ছে।
এই সরল তিনটে বাক্যের মধ্যেই আমরা চিত্রনাট্য সম্পর্কে একটা কার্যকরি সম্পূর্ণ রূপ দেখতে পাই: চলচ্চিত্র, নির্মানের একাধিক কারিগরী স্তর, শীল্প, সাহিত্য, জনপ্রিয়। এর প্রতিটা শব্দের সাথেই চিত্রনাট্য রচনার ওতপ্রেত সম্পর্ক্য। কোনটার সাথে চিত্রনাট্যের অঙ্গাঙ্গি সম্পর্ক্য কোন কোনটার সাথে তার চোরা যোগাযোগ।

উপরের কথাগুলো আমি বলেছি About Page এর ‘চিত্রনাট্য’-র মধ্যে। এবার ভূমিকায়ে ব্যপারটা একটু খোলসা করে বলবার প্রয়োজন মনে করছি। বলেছি, ‘চলচ্চিত্র, নির্মানের একাধিক কারিগরী স্তর, শীল্প, সাহিত্য, জনপ্রিয়। এর প্রতিটা শব্দের সাথেই চিত্রনাট্য রচনার ওতপ্রেত সম্পর্ক্য। কোনটার সাথে চিত্রনাট্যের অঙ্গাঙ্গি সম্পর্ক্য কোন কোনটার সাথে তার চোরা যোগাযোগ

——————-
চলচ্চিত্র, অর্থাৎ চলৎ চিত্র। মনে যে সব চিত্র চলে। সিনেমা, টিভি-নাটক, টিভি-চিত্র, প্রামান্যচিত্র, তথ্যচিত্র, বিজ্ঞাপণ-চিত্র এমন যত গুলো পদর্শনযোগ্য চলৎ চিত্র আছে, এমনকি বর্তমান কালে ব্যবসায়িক কাজে ব্যবহৃত ‘প্রেজেনটেশনের’ জন্যেও চিত্রনাট্য তৈরি করা প্রযোজন হয়।
(তর্ক বিতর্কের জন্য এখানে অনেকেই বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে, বা সংঘা নিয়ে পান্ডিত্য প্রয়োগ করতে পারেন। বিনিত অনুরোধ, আমার মনে প্রানে ইচ্ছে চিত্রনাট্যের কলা-কৌশল আর কারিগরি প্রয়োগ নিয়ে বিস্তারিত আলাপ করা, বলা এবং শেখা।)
চলচ্চিত্র নির্মানের একাধিক কারিগরী স্তর: একেবারে গল্প বাছাই থেকে শুরু করে ধাপে ধাপে প্রদর্শন অবধি। আমাদের বিষয় চিত্রনাট্য রচনা, সেটাই মূল আলোচনা, বিস্তারিত আলাপ নিদর্শন, উদাহরন সব: তবে চিত্রনাট্যকারকে অবশ্যই প্রতিটা ধাপ সম্পর্ক্যে ভাল ধারনা থাকতে হয়, তাই সবই আলাপ করা হবে। পরতে পরতে।
শীল্প: চলচিত্র একটা শীল্প, আর তা সার্বজনিন। অনেকে মিলে করতে হয়, অনেকে মিলে দেখে। আর সংস্কার, সংস্কৃতি আর মুখের ভাষার মধ্যে পৃথকতা সত্বেও চোখের আর বুকের ভাষা বিশ্বময় একই।
সাহিত্য: চলচ্চিত্রের সাহিত্যগুন শুধু তার শিল্পীদের সংলাপ বা কথায়ে নয় কাহিনি বিস্তারের ঢং-এর মধ্যেও প্রকাশ পায়। চিত্রনাট্যকারের প্রখর সাহিত্য রস না থাকলে কাহিনি বাছাই বা নির্মান, বিস্তার কি সম্ভব?
জনপ্রিয়তা: সে সিনেমাই হোক কিম্বা ব্যবসায়িক ‘প্রেজেনটেশন’, যার বা যাদের জন্য তৈরি তাদের প্রিয়তা পেতে হবে। না হলে আপনি বা আপনার প্রদর্শিত সব কিছু বিফল। তবে মনে রাখরে হবে সস্তা বা চটুল উপায় ছাড়া পছন্দ করানো উচিৎ (যেমন, সিনেমায়ে গল্পের সাথে কোন সম্পর্ক্য ছাড়াই একটা আইটেম গান, সেক্স, ভায়োলেন্স, ইত্যাদি)

Advertisements